ঢাকা , শনিবার, ২০২২ জানুয়ারী ২২, ৮ মাঘ ১৪২৮

জাতীয়

ইসি গঠনে সংলাপ শুরু আজ, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বসছে জাপা

নিজস্ব প্রতিবেদক | টুয়েন্টিফোর টিভি
প্রকাশিত : সোমবার, ২০২১ ডিসেম্বর ২০, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন

নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আজ সোমবার (২০ ডিসেম্বর) বিকেল ৪টা থেকে শুরু হচ্ছে রাষ্ট্রপতির সংলাপ। সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কমিশন নিরপেক্ষ হতে পারে না দাবি করে বিএনপি বলছে, এই সংলাপে অংশ নেবে না তারা।

আর সংলাপে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের পরামর্শ দেবে সংসদে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। আস্থার সংকট কাটাতে কমিশন গঠনে সংবিধানের আলোকে আইন প্রণয়নের পরামর্শ বিশ্লেষকের।

সংবিধানের ১১৮ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের একটি নির্বাচন কমিশন থাকবে এবং উক্ত বিষয়ে প্রণীত আইনের বিধানাবলিসাপেক্ষে রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনারকে ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারকে নিয়োগ করবেন।
 
কিন্তু গত ৫০ বছরেও হয়নি নির্বাচন কমিশন গঠনের সেই আইন। আগামী ফেব্রুয়ারিতে শেষ হচ্ছে বর্তমান কমিশনের মেয়াদ। তাই নতুন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ শুরু করছেন রাষ্ট্রপতি।
 
সোমবার (২০ ডিসেম্বর) প্রথম দিন সংলাপে অংশ নেবে সংসদের বিরোধী দল-জাতীয় পার্টি। নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের পরামর্শ দেবে দলটি।
 
জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম মেম্বার মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, বসে আলোচনা করে এটার সঠিক একটা আইনে পরিণত করা উচিত। বাংলাদেশের অনেক সংস্থা রয়েছে- যেগুলোর আইন থাকা উচিত।
 
আর সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠিত কমিশন নিরপেক্ষ ভূমিকা রাখতে পারছে না দাবি করে সংলাপে অংশ না নেওয়ার কথা বলছে বিএনপি।
 
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, যারা সুষ্ঠু নির্বাচন বিশ্বাস করে না, যারা অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন বিশ্বাস করে না; তারা সংলাপের মধ্য দিয়ে একটা স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠন করবে এটা কেউ বিশ্বাস করে না, তো সেই সংলাপে গিয়ে কী লাভ।
 
আর কমিশন গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে আস্থার সংকট কাটাতে স্থায়ী আইন প্রণয়নের পরামর্শ বিশ্লেষকের।
 
রাজনীতি বিশ্লেষক ড. জোবাইদা নাসরিন বলেন, নির্বাচন কমিশন কেন্দ্র করে এ আইন যদি তৈরি হয় তাহলে বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি স্বচ্ছতার জায়গা এবং গত দুই বছরে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অস্বচ্ছতার যে জায়গা তৈরি হয়েছে, সেগুলো আমার কাছে মনে হয় কমে যাবে।
 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সাব্বীর আহমেদ বলেন, জাতীয় সংসদ রয়েছে, সেই সংসদেও যদি আলোচনা করা হয় বা এ বিষয়ে একটি বিল আনা হয়, তা হলে একটা ঐকমত্যের ভিত্তিতে আইন তৈরি করা যেতে পারে।
 
এ পর্যন্ত গঠিত ১২টি নির্বাচন কমিশনের মধ্যে গত দুটি কমিশন রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটির মাধ্যমে গঠন করেন।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

আরও খবর

Video