ঢাকা , শনিবার, ২০২১ ডিসেম্বর ০৪, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

হালদা নদীর কার্পজাতীয় মাছের জীবন রহস্য উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিবেদক | টুয়েন্টিফোর টিভি
প্রকাশিত : বুধবার, ২০২১ নভেম্বর ১৭, ০২:১৬ অপরাহ্ন

দেশে প্রথমবারের মতো হালদা নদীর কার্পজাতীয় চারটি মাছ এবং ডলফিনের জীবন রহস্য উন্মোচন করা হয়েছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় দুই বছর ধরে যৌথভাবে এ গবেষণা পরিচালনা করছে। এতে হালদা নদীর জীববৈচিত্র্য রক্ষা, ব্যবস্থাপনা ও গবেষণায় আন্তর্জাতিকভাবে গুরুত্ব পাবে বলে জানিয়েছেন হালদা গবেষকরা।

দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদীর চারটি কার্পজাতীয় মাছ রুই, কাতল, মৃগেল, কালবাউশ ও ডলফিনের পূর্ণাঙ্গ জীবন রহস্য উন্মোচিত করা হয়েছে। পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) অর্থায়নে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও ভেটিরিনারি বিশ্ববিদ্যালয় দুই বছর ধরে এ গবেষণা পরিচালনা করছে।

জীবন রহস্য উন্মোচনের ফলে, এ অঞ্চলের প্রধান কার্পসমূহ ও ডলফিনের জিনের বিন্যাস, বিবর্তনের গতিপথ, সংরক্ষণ এবং সর্বোপরি জাতিগত বিস্তৃতি সম্পর্কে একটি সম্যক ধারণা পাওয়া সম্ভব হবে।

ভ্যাটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এ এম জুনায়েদ সিদ্দিকী বলেছেন, আমাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল কার্প জাতীয় চারটি মাছ রুই, কাতল, মৃগেল, কালাবাউশ এবং ডলফিন, যেটি বিপন্ন একটি প্রজাতি, এসবগুলো জীনকে উদ্ধার করা। ৭০ থেকে ৮০ হাজার জিন এবং প্রোটিনকে আমরা শনাক্ত করতে পেরেছি। এ জিনগুলো বিন্যাস এবং এর বায়োলোজিকাল ফাংশন বা তারা কি করছে শারীরবৃত্তিক প্রক্রিয়ায়, এসব আমরা উন্মোচন করতে পেরেছি।

এ গবেষণার মাধ্যমে পরিবেশগত পরিবর্তন, অসুস্থতা, এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ জৈবিক প্রক্রিয়া খুঁজে বের করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন হালদা নদীর গবেষক প্রফেসর ড. মনজুরুল কিবরীয়া।

তিনি বলেছেন, হালদাতে এত দিন পর্যন্ত যে গবেষণা হয়েছে সেগুলো বেশ সাধারণ ছিল। এখন মলিকুলার লেভেলে হালদার ৪টি প্রজাতি সংরক্ষণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তাদের যে বিকাশ বা রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বা বৈচিত্র্য রয়েছে। আমরা সেটি জানতে পারব।

২০২০ সালের ২১ ডিসেম্বর হালদা নদীকে বঙ্গবন্ধু ফিশারিজ হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।  

 

আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

মন্তব্য করুন

আরও খবর

Video